ব্রেকিং:
মাস্কের ব্যবহার নিশ্চিত করতে এবার মাঠে নেমেছে র‌্যাব ঠাকুরগাঁওয়ে কৃষি পণ্য প্রক্রিয়াজাতকরণ প্রদর্শন মেলা ফুলবাড়ীতে পৗর নির্বাচন উপলক্ষে মাঠে নেমেছে প্রার্থীরা
  • শনিবার   ২৮ নভেম্বর ২০২০ ||

  • অগ্রাহায়ণ ১৩ ১৪২৭

  • || ১২ রবিউস সানি ১৪৪২

সর্বশেষ:
মেধাকে কাজে লাগাতে সরকারি কর্মচারীদের প্রতি আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর পঞ্চগড়ে টি ট্যুরিজমের অপার সম্ভাবনা এখন থেকেই উদ্যোগী না হলে দেশ পিছিয়ে যাবে- প্রধানমন্ত্রী ডিসেম্বরে বঙ্গবন্ধু টানেলের দ্বিতীয় টিউবের কাজ শুরু আলী যাকেরের মৃত্যুতে রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর শোক

গাইবান্ধায় ছোটবোনের জন্য এক পদে ৬ বার নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি!

– দৈনিক ঠাকুরগাঁও নিউজ ডেস্ক –

প্রকাশিত: ২৫ অক্টোবর ২০২০  

আত্মীয়দের বেতনভুক্ত করে স্কুল চালাচ্ছেন প্রধান শিক্ষক। সম্প্রতি গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জের বামনডাঙ্গা ইউপির কাঠগড়া দ্বি-মুখী উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ইউনুস আলীর বিরুদ্ধে এমন অভিযোগ উঠেছে। শুধু তাই নয়, ছোট বোনকে নিয়োগের জন্য একই পদে ছয়বার নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করার অভিযোগ উঠেছে ওই প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে। 

বুধবার স্থানীয় দুই অভিভাবক এ সংক্রান্ত একটি লিখিত অভিযোগ জেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা এনায়েত হোসেনের কাছে দাখিল করেন। লিখিত অভিযোগ অনুসারে, বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ইউনুস আলীর ছোট বোন রওশন আরাকে সহকারী প্রধান শিক্ষক পদে নিয়োগ দিতেই চার বছরে ছয়বার বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হয়। আর প্রতিবার বিজ্ঞপ্তি প্রকাশের পর কারণ ছাড়াই নিয়োগ পরীক্ষা বাতিলও করেন বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। এমনকি নিয়োগ পরীক্ষায় অংশ নিতে আবেদনকারীরা কেন্দ্রে গেলেও পরীক্ষা না নিয়ে তাদের ফেরত পাঠানোর একাধিক ঘটনা ঘটে। শুধু তাই বিদ্যালয়ের চার সিনিয়র সহকারী শিক্ষক থাকলেও তাদের বাদ দিয়ে ছোট বোনকে নিয়োগ দেয়ার চেষ্টা করছেন প্রধান শিক্ষক ইউনুস আলী। 

অভিযোগে আরো বলা হয়, এরইমধ্যে নিয়ম বহির্ভূতভাবে লাইব্রেরিয়ান পদে প্রধান শিক্ষক তার শ্যালক রফিকুল ইসলাম ও অফিস সহকারী পদে ভাতিজা আব্দুল মালেককে নিয়োগ দিয়েছেন। আর নতুন এই দুইজনসহ ওই বিদ্যালয়ে কর্মরতদের মধ্যে প্রধান শিক্ষকের নিকট আত্মীয়র সংখ্যা নয়জন। যা বিদ্যালয়টির মোট শিক্ষক-কর্মচারীর প্রায় অর্ধেকের সমান।

এ ব্যাপারে বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ইউনুস আলী জানান, নিয়োগের বিষয়ে জেলা শিক্ষা কর্মকর্তা মহোদয়ের কাছে একটি লিখিত অভিযোগ হওয়ার বিষয়টি জেনেছি। তবে আমি আমার বোনকে নিয়োগ দেয়ার চেষ্টা করছি, বিষয়টি সঠিক নয়। অভিযোগের বিষয়ে তদন্ত হলে বিষয়টি পরিষ্কার হবে।

অভিযোগ পাওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করে জেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা এনায়েত হোসেন বলেন, নিয়োগের বিষয়ে ডিজির প্রতিনিধি না পাঠানোর জন্য একটা লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। বিষয়টি তদন্ত করে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

রংপুরের উপপরিচালক (মাধ্যমিক) আক্তারুজ্জামান বলেন, জেলা শিক্ষা কর্মকর্তার কাছে এ সংক্রান্ত একটি অভিযোগ দাখিল হয়েছে। অভিযোগটি আমলে নিয়ে তদন্তের নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

– দৈনিক ঠাকুরগাঁও নিউজ ডেস্ক –