ব্রেকিং:
করোনাভাইরাসের সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে না আসায় চলমান বিধিনিষেধের মেয়াদ আরও একমাস বাড়ানো হয়েছে। তবে এ সময় খোলা থাকবে সব সরকারি-বেসরকারি অফিস আদালত।
  • বৃহস্পতিবার   ১৭ জুন ২০২১ ||

  • আষাঢ় ২ ১৪২৮

  • || ০৫ জ্বিলকদ ১৪৪২

সর্বশেষ:
দেশে জরুরি ব্যবহারে জনসনের টিকার অনুমোদন ‘পোশাক শিল্পের উৎপাদন অব্যাহত রাখতে ঋণ দিয়েছে সরকার’ পঞ্চগড়ে ২০০ বস্তা চাসহ ট্রাক আটক জিয়াউর রহমান হাজার হাজার গাছ কেটে ফেলেছিলেন- তথ্যমন্ত্রী রোহিঙ্গা ইস্যুতে জাতিসংঘের জরুরি পদক্ষেপ গ্রহণের আহ্বান

পছন্দের ডায়াগনস্টিকে পরীক্ষা না করায় রোগীই দেখলেন না ডাক্তার

– দৈনিক ঠাকুরগাঁও নিউজ ডেস্ক –

প্রকাশিত: ১০ জুন ২০২১  

পছন্দের ডায়াগনস্টিক সেন্টারে পরীক্ষা না করায় রোগীকেই দেখলেন না লালমনিরহাটের উপসহকারী কমিউনিটি মেডিকেল অফিসার ডা. মো. রেজাউল হক। এ ঘটনায় গতকাল বুধবার বিকেলে তার বিরুদ্ধে সিভিল সার্জনের কার্যালয়ে অভিযোগ করেছেন রোগী রাবেয়া খাতুনের মেয়ে রুমা খাতুন।

অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, অসুস্থ মাকে নিয়ে মঙ্গলবার সকালে সদর উপজেলার উপ-স্বাস্থ্যকেন্দ্রে ডা. মো. রেজাউল হকের কাছে নিয়ে যান রুমা। ওই সময় ডা. রেজাউল তিনটি পরীক্ষা করিয়ে আসতে বলেন এবং পরীক্ষাগুলো তার পছন্দের লামিয়া ডায়াগনস্টিক সেন্টার থেকেই করানোর জন্য জোর করেন। কিন্তু লামিয়া ডায়াগনস্টিক সেন্টারে পরীক্ষাগুলো করতে বেশি টাকা চাওয়ায় পাশের সেন্ট্রাল ক্লিনিকে যান রুমা। সেখানে অল্প টাকায় পরীক্ষা করান তিনি।

গতকাল বুধবার সকালে পরীক্ষার রিপোর্ট ও মাকে নিয়ে আবারো ডা. রেজাউলের কাছে যান। কিন্তু পছন্দের ডায়াগনস্টিক সেন্টার থেকে পরীক্ষা না করানোয় রিপোর্ট ছুঁড়ে ফেলে অসুস্থ রাবেয়া খাতুনের চিকিৎসা করাতে অস্বীকৃতি জানান তিনি। এমনকি মা-মেয়েকে অপমান করে স্বাস্থ্যকেন্দ্র থেকে বের করে দেন।

রুমা খাতুন বাড়ি ফিরে ওইদিন বিকেলেই ডা. রেজাউল হকের বিরুদ্ধে সিভিল সার্জন বরাবর লিখিত অভিযোগ করেন।জানতে চাইলে ডা. রেজাউল তার বিরুদ্ধে ওঠা অভিযোগ সম্পুর্ণ মিথ্যা বলে দাবি করেন।

লালমনিরহাটের সিভিল সার্জন ডা. নির্মলেন্দু রায় জানান, কোনো চিকিৎসকের এমন অনৈতিক কাজ করার এখতিয়ার নেই। এটা মেনে নেয়া হবে না। অভিযোগের তদন্ত করা হবে। প্রমাণ পেলে ওই চিকিৎসকের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

– দৈনিক ঠাকুরগাঁও নিউজ ডেস্ক –