ব্রেকিং:
বাংলাদেশ বিশ্বে উন্নয়নশীল দেশের মর্যাদা নিয়ে চলবে: প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা
  • মঙ্গলবার   ০২ মার্চ ২০২১ ||

  • ফাল্গুন ১৮ ১৪২৭

  • || ১৮ রজব ১৪৪২

সর্বশেষ:
পোশাক খাতে ভিয়েতনামকে পেছনে ফেলল বাংলাদেশ বঙ্গবন্ধু হাইটেক সিটিতে মানবদেহের প্লাজমা প্ল্যান্ট নির্মাণ শুরু দেশে প্রথমবারের মতো চালু হয়েছে `বঙ্গবন্ধু শিক্ষাবীমা` আইসিজেতে বাংলাদেশকে দেয়া সহায়তা অব্যাহত রাখবে ওআইসি নারীদের জন্য ‘বঙ্গমাতা পদক’

রপ্তানিযোগ্য আলুর আবাদ বৃদ্ধিতে গুরুত্ব দেওয়া হচ্ছে- কৃষিমন্ত্রী

– দৈনিক ঠাকুরগাঁও নিউজ ডেস্ক –

প্রকাশিত: ২৯ জানুয়ারি ২০২১  

কৃষিমন্ত্রী ড. মো. আব্দুর রাজ্জাক বলেছেন, বর্তমানে বছরে ১ কোটি টনের বেশি উন্নত জাতের আলু উৎপাদন হয়। অথচ দেশে চাহিদা রয়েছে ৬০-৭০ লাখ টনের মত। দেশে উৎপাদিত আলুতে পানির পরিমাণ বেশি হওয়ায় বিদেশে চাহিদা কম। সেজন্য বিদেশের চাহিদার বিষয়টি বিবেচনায় নিয়ে রপ্তানি ও শিল্পে ব্যবহারযোগ্য আলুর আবাদ ও উৎপাদন বৃদ্ধিতে গুরুত্ব দেওয়া হচ্ছে।

বুধবার সকালে নীলফামারীর ডোমার উপজেলায় বাংলাদেশ কৃষি উন্নয়ন কর্পোরেশনের (বিএডিসি) বীজ আলু উৎপাদন খামার পরিদর্শন শেষে তিনি এসব কথা বলেন।

মন্ত্রী এদিন রফতানি ও শিল্পে ব্যবহারযোগ্য আলুর প্লট, আলু ফসলের মিউজিয়াম, ড্রাগন ও খেঁজুর বাগান পরিদর্শন করেন । এছাড়া পঞ্চগড় জেলার দেবীগঞ্জ উপজেলার তিস্তাপাড়ায় কাজুবাদাম, মিষ্টিআলু,কফি চাষ,প্রসেসিং ও কৃষকদের প্রশিক্ষন কর্মশালা, বারির বীজ বর্ধন খামার,গম ও ভুট্টা বীজ উৎপাদন খামার পরিদর্শন করেন।

মন্ত্রী বলেন, বিএডিসির মান সম্পন্ন বীজআলু উৎপাদন ও সংরক্ষণ এবং কৃষক পর্যায়ে বিতরণ জোরদারকরণ প্রকল্পের আওতায় ডোমার খামারে ভিত্তি বীজ আলু উৎপাদন করা হচ্ছে। পাশাপাশি নতুন জাতের উপযোগীতা যাচাইয়ের জন্য ট্রায়াল প্লট স্থাপন ও পর্যবেক্ষণ করা হচ্ছে। এ ছাড়াও প্রকল্পের আওতায় সারাদেশে ২৮টি জোনে চুক্তিবদ্ধ চাষির মাধ্যমে কৃষক পর্যায়ে ব্যবহৃত বীজ আলু উৎপাদন করা হচ্ছে।

তিনি বলেন, এ প্রকল্পের আওতায় উচ্চ ফলনশীল, রপ্তানি ও শিল্পে ব্যবহার উপযোগী আলুর জাত পরিচিতি ও জনপ্রিয়করণের জন্য বিএডিসি আমদানিকৃত এবং বারি উদ্ভাদিত সম্ভামনাময় ২০টি জাত নিয়ে এ বছর সারাদেশে ৩০০টি প্রদর্শনী প্লট ও মাল্টিলোকেশন টেস্ট পরিচালনা করা হচ্ছে।

তিনি আরো বলেন- বর্তমান সরকার কৃষকের উন্নয়নে অসংখ্যা কর্মসূচী গ্রহণ করেছে। সরকার করোনাকালে কৃষকের ক্ষতির কথা চিন্তা করে প্রণোদনা দিয়েছেন। কৃষক ও কৃষিকে প্রযুক্তিতে এগিয়ে নিতে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে সরকার বলেও জানান তিনি।

এ সময় কৃষি সচিব মো. মেজবাহুল ইসলাম, বিএডিসির চেয়ারম্যান মো. সায়েদুল ইসলাম, কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মো. আসাদুল্লাহ, বারির মহাপরিচালক নাজিরুল ইসলাম, গম ও ভুট্টা গবেষণা ইনস্টিটিউটের মহাপরিচালক ড. মো. এছরাইল হোসেন প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

– দৈনিক ঠাকুরগাঁও নিউজ ডেস্ক –