• মঙ্গলবার   ১৭ মে ২০২২ ||

  • জ্যৈষ্ঠ ২ ১৪২৯

  • || ১৩ শাওয়াল ১৪৪৩

সর্বশেষ:
আমাদের সজাগ থাকতে হবে: প্রধানমন্ত্রী সহকারী শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষার প্রবেশপত্র সংগ্রহের আহ্বান দিনাজপুরে ট্রাকচাপায় মোটরসাইকেলের ৩ আরোহী নিহত বাংলাদেশ থেকে কৃষি শ্রমিক নিতে জর্ডানের প্রতি আহ্বান মন্ত্রীর ‘আমাদের কৃষকদের উৎপাদিত ধান দিয়েই চালের চাহিদা মিটছে’

‘ই-ডাটাবেজে নিবন্ধিত হলে এসএমই উদ্যোক্তারা সহজে সেবা পাবেন’     

– দৈনিক ঠাকুরগাঁও নিউজ ডেস্ক –

প্রকাশিত: ২১ জানুয়ারি ২০২২  

শিল্পমন্ত্রী নূরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ুন বলেছেন, ক্ষুদ্র ও মাঝারি উদ্যোক্তারা ‘এসএমই ই-ডাটাবেজে’ নিবন্ধিত হলে খুব সহজেই সকল প্রকার সেবা পাবেন।

তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী ঘোষিত শিল্পসমৃদ্ধ ও উন্নত দেশ গঠনের লক্ষ্যে ২০২৬ সাল নাগাদ স্বল্পোন্নত দেশ (এলডিসি) থেকে চূড়ান্ত উত্তরণ, ২০৩০ সালের মধ্যে এসডিজি অর্জন এবং ২০৪১ সালের মধ্যে উন্নত বাংলাদেশ বিনির্মাণে আমাদের নিরলসভাবে কাজ করতে হবে।

শিল্পমন্ত্রী বৃহস্পতিবার রাজধানীর শেরেবাংলা নগরে পর্যটন ভবন মিলনায়তনে এসএমই ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে দেশের চারটি উপজেলায় এসএমই ‘ই-ডাটাবেজ’ প্রণয়নের পাইলট কর্মসূচির উদ্বোধন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এসব কথা বলেন।

তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন। এতে সভাপতিত্ব করেন এসএমই ফাউন্ডেশনের চেয়ারপার্সন অধ্যাপক ড. মো. মাসুদুর রহমান।

এসএমই পলিসিতে দেশের সকল ক্ষুদ্র ও মাঝারি উদ্যোক্তার (এসএমই) তথ্য ভাণ্ডার সন্নিবেশনের নির্দেশনা আছে উল্লেখ করে নূরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ুন আশা প্রকাশ করেন, এসএমই ডাটাবেজ প্রণয়নে এসএমই ফাউন্ডেশন এবং এটুআই’র যৌথ প্রচেষ্টা ফলপ্রসূ হবে। 

অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে এসএমই ফাউন্ডেশনের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ড. মো. মফিজুর রহমান ও এটুআই’র  প্রকল্প পরিচালক ড. দেওয়ান মুহাম্মদ হুমায়ুন কবীর অনুষ্ঠানে বক্তৃতা করেন।

শিল্পমন্ত্রী বলেন, বর্তমানে বাংলাদেশের শতকরা প্রায় ৯৯ ভাগ শিল্প ও ব্যবসা কুটির শিল্প এবং এমএসএমই খাতের আওতাভুক্ত। এসব খাত দেশের অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ডের ৭০ শতাংশই নিয়ন্ত্রণ করে। মোট শিল্প কর্মসংস্থানের শতকরা ৮০ থেকে ৮৫ ভাগ সৃষ্টি  হচ্ছে এসএমই খাতে। এসএমই খাত মোট অভ্যন্তরীণ শিল্পপণ্য চাহিদার শতকরা ৩০ থেকে ৩৫ ভাগ যোগান দিয়ে থাকে। তাই এসএমই ই-ডাটাবেজ কার্যক্রম অত্যন্ত সময়োপযোগী উদ্যোগ। 

দেশের সকল এসএমই উদ্যোক্তার তথ্য একই প্ল্যাটফর্মে পাওয়া গেলে এ খাতের উন্নয়নে সরকারের নীতি নির্ধারণ সহজ হবে উল্লেখ করে তিনি বলেন, এ ধরনের কর্মসূচি অর্থনীতির প্রাণ এমএসএমই খাতের উন্নয়নে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে।

এদিকে, এসএমই ফউিন্ডেশনের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে আজ বলা হয়, এসএমই ফাউন্ডেশন এটুআই’র সহযোগিতায় দেশব্যাপী এসএমই ‘ই-ডাটাবেজ’ তৈরির উদ্যোগ নিয়েছে। ডাটাবেজ তৈরি কার্যক্রমের অংশ হিসেবে বৃহস্পতিবার প্রাথমিকভাবে ঢাকার শ্যামপুর, বগুড়ার আদমদীঘি, পিরোজপুরের নেছারাবাদ এবং কিশোরগঞ্জের ভৈরব এ চারটি উপজেলা বা থানায় পাইলট কর্মসূচির আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করা হয়।

অনুষ্ঠানে জানানো হয়, www.smef.nise.gov.bd  এ ওয়েব লিংকে লগইন করে একজন উদ্যোক্তা নিজে/ইউনিয়ন ডিজিটাল সেন্টারের সহায়তায়/এসএমই ক্লাস্টার অ্যাসোসিয়েশনের মাধ্যমে এসএমই ‘ই-ডাটাবেজের’ জন্য নিজেদের তথ্য আপলোড করতে পারবেন।

উল্লেখ্য, ২০১৩ সালে পরিসংখ্যান ব্যুরো পরিচালিত সবর্শেষ অর্থনৈতিক সমীক্ষা অনুযায়ী দেশের মোট ৭৮ লাখেরও বেশি ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের মধ্যে ৯৯ ভাগের বেশি কুটির, মাইক্রো, ক্ষুদ্র ও মাঝারি (সিএমএসএমই) খাতের। 

– দৈনিক ঠাকুরগাঁও নিউজ ডেস্ক –