• শনিবার   ১৬ অক্টোবর ২০২১ ||

  • আশ্বিন ৩০ ১৪২৮

  • || ০৭ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

সর্বশেষ:
পূজামণ্ডপে অরাজকতা সৃষ্টির অপচেষ্টাকারীরা পার পাবে না- প্রধানমন্ত্রী ‘কোনো সুস্থ ধর্মপ্রাণ ব্যক্তি অন্য ধর্মে আঘাত করতে পারে না’ নির্বাচন সামনে রেখে সাম্প্রদায়িক অপশক্তির মাথাচাড়া- কাদের মণ্ডপে মণ্ডপে বেজে উঠেছে বিদায়ের সুর কারিগরি ত্রুটির কারণে মোবাইল অপারেটরে ইন্টারনেট সেবা বিঘ্নিত

ঠাকুরগাঁওয়ে জামাতাকে নির্যাতনের মামলার বিরুদ্ধে পাল্টা মামলা

– দৈনিক ঠাকুরগাঁও নিউজ ডেস্ক –

প্রকাশিত: ৩ অক্টোবর ২০২১  

ঠাকুরগাঁওয়ের রানীশংকৈলে গাছে বেঁধে জামাতাকে অমানবিক নির্যাতন মামলার বিরুদ্ধে পাল্টা মামলা করেছেন অভিযুক্তরা। এতে স্থানীয় সাংবাদিক মাহবুবসহ পাঁচজনের বিরুদ্ধে আদালতে অপহরণ ও ধর্ষণের অভিযোগে মামলা করা হয়েছে।

নির্যাতনের শিকার নাসিরুল ইসলামের স্ত্রীর বাবা করিমুল ইসলাম গত ২৯ সেপ্টেম্বর ঠাকুরগাঁও নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালে এ মামলা করেন।

উপজেলার ভাংবাড়ী গ্রামের করিমুল ইসলামের মেয়ে কেয়া মনি একই গ্রামের খলিলুর রহমানের ছেলে নাসিরুল ইসলামের সঙ্গে প্রেম করে আসছিল। পরিবারের লোকজন তাদের সম্পর্ক মেনে না নিলে গত ৯ সেপ্টেম্বর পালিয়ে গিয়ে ঠাকুরগাঁও নোটারি পাবলিক অব বাংলাদেশ কার্যালয়ে গিয়ে এফিডেভিট মূলে বিয়ের ঘোষণা দেয় তারা। এরপর তারা নারায়ণগঞ্জে গিয়ে সংসার করতে থাকে। সেখানে থাকাকালে উভয় পরিবারের লোকজন তাদের বিয়ে মেনে নেবে আশ্বাসে তারা বাড়িতে ফিরে আসে। পরে তারা দুজনেই নিজ নিজ বাড়িতে অবস্থান করতে থাকে। এ অবস্থায় গত ২০ সেপ্টেম্বর বিকালে নাসিরুল তার স্ত্রীর সঙ্গে দেখা করার জন্য ভাংবাড়ী বগুড়াপাড়া স্কুলের দিকে গেলে মেয়ের পিতা করিমুল ও তার পরিবারের লোকজন নাসিরুলকে ধরে নিয়ে যায় এবং একটি কাঁঠাল গাছের সঙ্গে বেঁধে বাঁশের লাঠি দিয়ে অমানবিক নির্যাতন করে। এরপর গুরুতর অবস্থায় নাসিরুলকে উদ্ধার করে প্রথমে স্থানীয় হাসপাতালে ও পরে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

এ ঘটনা সামাজিক মাধ্যমে ভাইরাল হলে রানীশংকৈল থানা পুলিশ তৎপর হয়ে উঠে মেয়ের মা সেলিনা বেগম ও বাবা করিমুল ইসলামকে গ্রেপ্তার করে আদালতে সোপর্দ করে। ওই ঘটনায় নাসিরুলের বাবা পাঁচজনকে আসামি করে রানীশংকৈল থানায় একটি পাল্টা মামলা করেন।

এদিকে, এ ঘটনায় নির্যাতনের শিকার নাসিরুলের পরিবারে এখন আতঙ্ক বিরাজ করছে।

এ বিষয়ে সাংবাদিক মাহবুব হোসেন জানান, নাসিরুলকে অমানবিক নির্যাতনের সংবাদ পরিবেশন করায় এবং মামলাটিকে ভিন্নখাতে প্রবাহিত করতে আমাকে মিথ্যা মামলায় আসামি করা হয়েছে।

রানীশংকৈল থানার ওসি জানান, জামাতাকে নির্যাতনের মামলার আসামি করিমুল ইসলাম সস্ত্রীক জেল খাটার কারণে নিজের মেয়েকে ভুক্তভোগী সাজিয়ে অপহরণের মামলা দায়ের করার কথা শুনেছি। একটি মামলা হতে বাঁচতে আরেকটি মামলার অবতারণা করা সঠিক সিদ্ধান্ত না। তদন্তপূর্বক এ বিষয়ে সঠিক ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

– দৈনিক ঠাকুরগাঁও নিউজ ডেস্ক –