ব্রেকিং:
রংপুরের নবীগঞ্জ এলাকায় বাসচাপায় অটোরিকশার চারযাত্রী নিহত হয়েছেন। রোববার সন্ধ্যায় এ দুর্ঘটনা ঘটে।
  • শনিবার   ২৯ জানুয়ারি ২০২২ ||

  • মাঘ ১৫ ১৪২৮

  • || ২৩ জমাদিউস সানি ১৪৪৩

সর্বশেষ:
বিএনপির লবিস্ট নিয়োগের অর্থের হিসাব নেওয়া হবে: প্রধানমন্ত্রী জাতীয় সংসদের ১৬তম এবং বছরের প্রথম অধিবেশন সমাপ্ত দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচনই একমাত্র সমাধান: সিইসি নূরুল হুদা বিএনপির নেতাদের মুখে মানবাধিকারের কথা মানায় না: হুইপ স্বপন সমুদ্রগামী জাহাজ ব্যবসায় বিনিয়োগ বাড়াচ্ছেন বাংলাদেশি উদ্যোক্তারা

বালিয়াডাঙ্গীতে চুরি ঠেকাতে পাহারায় এলাকাবাসী 

– দৈনিক ঠাকুরগাঁও নিউজ ডেস্ক –

প্রকাশিত: ১২ অক্টোবর ২০২১  

ঠাকুরগাঁওয়ের বালিয়াডাঙ্গীতে দিন-রাতে চুরির ঘটনা ঘটছে। এতে চুরির আতঙ্ক বিরাজ করছে উপজেলা জুড়ে। চোরদের হাত থেকে রক্ষা পেতে লাঠি নিয়ে রাত জেগে পাহারা বসিয়েছে এলাকাবাসী। উপজেলার পাড়িয়া ইউনিয়নের সৌলাপুকুর গ্রামে এ দৃশ্য দেখা গেছে। একদল যুবক সময় ভাগ করে নিয়ে রাতে বাড়ি-ঘর পাহারা দিচ্ছেন।

জানা গেছে, শুধু অক্টোবরের প্রথম ১০ দিনে দুওসুও ও পাড়িয়া ইউনিয়নে পাঁচটি চুরির ঘটনা ঘটেছে। এর মধ্যে একটি চুরি ঘটনা ঘটেছে দিনের বেলায়।

এলাকাবাসী বলছে, আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে অবগত করার পরও চুরির কোন রহস্য উন্মোচন না হওয়ায় এসব ঘটনা প্রতিনিয়ত বাড়ছে। ফলে নিজেদের সম্পদ রক্ষা করতে নিজেরাই টর্চলাইট ও লাঠি নিয়ে রাত জেগে পাহারা দেওয়া শুরু করেছে তারা। তবে স্থানীয় থানার পুলিশ বলছে, চুরির ঘটনা ঠেকাতে তারা তত্পর রয়েছে।

ভুক্তভোগী স্কুলশিক্ষক আসাদ আলী জানান, চুরির ঘটনা পুলিশকে জানানোর পর ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। এরপর লিখিত অভিযোগ জমা দিয়েছি থানায়। এ পর্যন্ত শেষ। কোনো ফল পাইনি। পাড়িয়া গ্রামের নাজমুল হক জানান, বাড়িতে চুরির পর থানায় লিখিতভাবে জানানোর ২৪ ঘণ্টা পর পুলিশ আমার বাড়িতে এসেছে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করতে। সৌলাপুকুর গ্রামে রাত জেগে পাহারা দেওয়া যুবকরা জানায়, চুরির ঘটনা ঠেকাতে সময় ভাগ করে নিয়ে আমরা ১৫ জন যুবক পাহারা দিচ্ছি। চুরি বন্ধ এবং পুলিশ চুরির রহস্য উন্মোচন না করা পর্যন্ত এ কার্যক্রম চলবে। পাড়িয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ফজলে রাব্বী রুবেল জানান, চুরির ঘটনায় এলাকায় সাধারণ মানুষের মাঝে আতঙ্ক শুরু হয়েছে। ঘটনাগুলো তদন্ত করে চুরি হওয়া মালামাল উদ্ধারসহ চোরদের গ্রেফতারের দাবি জানান তিনি।

বালিয়াডাঙ্গী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা হাবিবুল হক প্রধান বলেন, ঘটনাগুলো তদন্ত করা হচ্ছে। পরিবারের সকলের ঘুম ঘুম ভাব আসলে স্থানীয় চেয়ারম্যান অথবা থানায় অবগত করবেন। প্রয়োজনে আমরা পোশাক ছাড়া আপনাদের বাড়িতে এসে অবস্থান নেব। এ সময় চোরদের ধরতে স্থানীয়দের সহযোগিতা চান তিনি।

– দৈনিক ঠাকুরগাঁও নিউজ ডেস্ক –