• মঙ্গলবার ১৮ জুন ২০২৪ ||

  • আষাঢ় ৩ ১৪৩১

  • || ১০ জ্বিলহজ্জ ১৪৪৫

ঠাকুরগাঁওয়ে কৃষকের ধান কেটে ঘরে তুলে দিলো কৃষক লীগ

– দৈনিক ঠাকুরগাঁও নিউজ ডেস্ক –

প্রকাশিত: ২০ মে ২০২৩  

 
কৃষিতে সরকারের নানামুখী সহযোগীতায় চলতি মৌসুমে ঠাকুরগাঁওয়ে ধানের বাম্পার ফলন হয়েছে। তবে ফসল ঘরে তুলতে শ্রমিক ও আর্থিক সঙ্কটে পড়েছে অসহায় কৃষকেরা। এমন পরিস্থিতিতে কৃষকের ধান কেটে ঘরে তুলে দিলেন ঠাকুরগাঁও জেলা ও রানীশংকৈল উপজেলা কৃষক লীগ। জমির ধান পেকে গেলেও শ্রমিক না পেয়ে ধান কেটে ঘরে তুলতে পারছিলেন না কৃষক। 

শনিবার সকালে ঠাকুরগাঁও জেলার রানীশংকৈল উপজেলার ৩ নম্বর হোসেনগাং ইউপির রাউতনগর গ্রামের কৃষক আতাউর রহমানের ১ বিঘা জমির পাকা ধান কেটে বাড়ি পৌছে দিলেন কৃষক লীগের নেতাকর্মীরা। বিনা পারিশ্রমিকে ধান কেটে দেওয়ায় খুশি কৃষক আতাউর।

এ সময় জেলা কৃষক লীগের সাধারণ সম্পাদক ফরহাদ আহাম্মেদ চৌধুরী রিংকুর নেতৃত্বে জেলা কৃষক লীগের মাসুদ রানা পলক, শেখ রফিকুল ইসলাম সিজার, মো. ওয়ালিউর রহমান বাবু, রানীশংকৈল কৃষক লীগের সভাপতি মো. বাবর আলী ও সাধারণ সম্পাদক ডিগেন কুমার রায়সহ প্রায় অর্ধ শতাধিক নেতাকর্মী উপস্থিত থেকে কৃষকের ধান কেটে বাড়ি পৌঁছে দেন। এধরনের কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে বলে জানান তারা।

কৃষক আতাউর রহমান বলেন, ১ বিঘা জমির ধান পেকে গেছে প্রায় কয়েকদিন হচ্ছে। কয়েকদিন ধরে ধান কাটা শ্রমিকদের সঙ্গে কথা বলেছি তারা আমার কাছে ধান মাড়াইসহ প্রায় ৬ হাজার টাকা চেয়েছেন। আমার কাছে বর্তমানে এতো টাকাও নেই। 

তিনি আরো বলেন, রানীশংকৈল কৃষক লীগের সভাপতি মো. বাবর আলী জেলা কৃষক লীগের সাধারণ সম্পাদক ফরহাদ আহাম্মেদ চৌধুরী রিংকুর সঙ্গে কথা বলে বিনা টাকায় আমার ধানগুলো কেটে মারাই করে ঘরে তুলে দিলো কৃষক লীগের নেতাকর্মীরা। শ্রমিকের অভাবে কাটতে পারছিলাম না। এ ধানগুলো কাটামাড়াই করতে প্রায় ৫-৬ হাজার টাকা লাগতো। বিনা টাকায় আমার ধান কেটে দেওয়ায় আমার অনেক বড় উপকার হলো।  

কৃষক লীগের জেলা সাধারণ সম্পাদক ফরহাদ আহাম্মেদ চৌধুরী রিংকু বলেন, জেলায় যে সব অসহায় গরিব কৃষক টাকার অভাবে অথবা শ্রমিকের অভাবে তাদের ধান জমিতে পড়ে আছে, তাদের জমির ধান কেটে মারাই করে নিজ দায়িত্বে ঘরে তুলে দিতে বলেছি নেতাকর্মীদের। আজ আমাদের এ কার্যক্রম উদ্বোধন হলো এটি চলমান থাকবে।

জানা যায়, এ বছর জেলায় ৬০ হাজার ১৫০ হেক্টর জমিতে বোরো ধান চাষাবাদের লক্ষমাত্রা থাকলেও অর্জিত হয়েছে ৬১ হাজার ৬৫০ হেক্টর জমিতে। ১৫০০ হেক্টর বেশি জমিতে ধান চাষাবাদ হয়েছে। ভালো ফলন পেয়ে খুশি কৃষকেরা।

– দৈনিক ঠাকুরগাঁও নিউজ ডেস্ক –