• বুধবার ২২ মে ২০২৪ ||

  • জ্যৈষ্ঠ ৭ ১৪৩১

  • || ১৩ জ্বিলকদ ১৪৪৫

‘বিগ বস’ কিনলেই মিলবে মোটরসাইকেল

– দৈনিক ঠাকুরগাঁও নিউজ ডেস্ক –

প্রকাশিত: ২০ জুন ২০২৩  

 
নাম তার ‘বিগ বস’। আকার আকৃতি ও ওজনে আসলেই বিগ বস। প্রায় এক হাজার ৭০০ কেজি ওজনের বিগ বসের দাম হাঁকা হয়েছে ৩০ লাখ টাকা। উপহার হিসেবে ক্রেতা পাবেন মোটরসাইকেল উপহার। আলোচিত ও সাড়া জাগানো বিগ বসকে দেখতে প্রতিনিয়ত ভিড় জমাচ্ছেন শতশত মানুষ। 

ছয় বছর আগে ৯০ দিন বয়সী ও ২৭ কেজি ওজনের গরুটিকে কেনেন আফিল উদ্দিন। আদর করে নাম রেখেছিলেন বিগ বস। লালন পালনের শুরু থেকে খাওয়াতেন প্রাকৃতিক খাবার ও ফলমূল। ছয় বছরে গরুটিকে বিশাল আকৃতির করেছেন তিনি। গত বছর গরুটির দাম ২২ লাখ বললেও বিক্রি করেননি তিনি। এবার কাঙ্ক্ষিত দামে বিক্রির আশা করেন তার।

ঠাকুরগাঁওয়ের হরিপুর উপজেলার ডাঙ্গীপাড়া ইউনিয়নের তালতলা গ্রামের বাসিন্দা আফিল উদ্দিন। তিনি শখের বসে লালন পালন করা শুরু করেছিলেন গরুটিকে। গত বছর সাড়ে এক হাজার ৫০০ কেজি ওজনের বিগ বসের দাম হাঁকা হয়েছিল ৩০ লাখ টাকা। এবারেও এক হাজার ৭০০ কেজি ওজনের বিগ বসের দাম হাঁকা হয়েছে ৩০ লাখ টাকা। আর ক্রেতা উপহার হিসেবে পাবেন একটি মোটরসাইকেল। 

বিগ বস লম্বায় ১০ ফুট এবং উচ্চতায় পাঁচ ফুট ১০ ইঞ্চির। ঘর থেকে বের করতে প্রয়োজন হয় ১৫ জনের অধিক মানুষ। এর ওজন এক হাজার ৭০০ কেজি বা সাড়ে ৪২ মণ। খাবার হিসেবে থাকে খেসারির ডাল, মসুর ডাল এবং খুদ। এছাড়া ফল হিসেবে আপেল, কমলা, আঙ্গুর, কলা ও ডাব খাওয়ানো হয়। প্রতিদিন গড়ে প্রায় দুই হাজার ৫০০ টাকার খাবার খাওয়ানো হয় বিগ বসকে।

স্থানীয় শরিফুল ইসলাম বলেন, নিজের সন্তানের মতো যত্ন করে গরুটিকে বড় করেছেন আফিল উদ্দিন ও তার স্ত্রী। তাদের দেখে আমাদের এখানকার অনেকে এভাবে গরু লালন-পালন করার পরিকল্পনা করছেন।

জেলার বালীয়াডাঙ্গী উপজেলার আমজানখোর থেকে আসা ব্যবসায়ী আনিসুর রহমান গরুটি দেখার পর বলেন, ফেসবুকে জানার পর দেখতে এসেছি। অনেক লোকজন দেখতে আসছেন গরুটি। এত বড় আকৃতির গরু কখনো দেখিনি। 

গরুটির মালিক আফিল উদ্দিন বলেন, ছয় বছর আগে মাত্র ৯০ দিন বয়সের এবং ২৭ কেজি ওজনের এই বিদেশি (এল এল সি) জাতের গরুটিকে ক্রয় করি। তখন থেকে প্রাকৃতিক খাবার ও ফলমূল এটিকে রুটিন করেই খেতে দেওয়া হয়। গত বছর এই গরুর দাম ২২ লাখ টাকা বললেও কাঙ্ক্ষিত দাম না পাওয়ায় বিক্রয় করিনি। এবার আশা করছি কাঙ্ক্ষিত দামে বিক্রয় করতে পারব।

তিনি আরো বলেন, কোরবানির আশায় এত বড় করেছি গরুটিকে। ৩০ লাখ টাকা হলে বিক্রি করব। এর সঙ্গে ক্রেতাকে উপহার হিসেবে ১৬০ সিসি’র পালসার অথবা অ্যাপাচি আরটিআর মোটরসাইকেল দেওয়া হবে।

বিগ বস নাম রাখার কারণ জানতে চাইলে আফিল উদ্দিন বলেন, গরুটি ভাবগম্ভীর আর চলন-বলনে দেখতে বসের মতো। সে কারণে আমি নিজে এর নাম রেখেছি বিগ বস।

জেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা ডা. আবুল কালাম আজাদ বলেন, এমন বড় আকৃতির বা ওজনের দ্বিতীয় গরু ঠাকুরগাঁওয়ে নেই। আফিল উদ্দিন এই গরুটিকে খুব যত্নসহকারে লালন-পালন করেছেন। এই গরু মোটাতাজাকরণে কোনো ক্ষতিকর ওষুধ দেওয়া হয়নি। আমরা নিয়মিত গরুটি দেখতে গেছি এবং পরামর্শ দিয়েছি। 

– দৈনিক ঠাকুরগাঁও নিউজ ডেস্ক –